বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১২:৫১ পূর্বাহ্ন

প্রাণভয়ে ইউক্রেনের হাজারো মানুষ পাতাল রেলস্টেশনে

  • প্রকাশিত : শনিবার, ৫ মার্চ, ২০২২

২৪ ফেব্রুয়ারি থেকে ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযান শুরুর পর কয়েক দিনের ব্যবধানে বদলে গেছে কিয়েভের পাতাল রেলের দৃশ্য। ব্যস্ততম স্টেশন এখন পরিণত হয়েছে আশ্রয়স্থল হিসেবে। হামলার ভয়ে জীবন বাঁচাতে বাড়িঘর ছেড়ে যে যেভাবে পেরেছেন আশ্রয় নিয়েছে পাতাল স্টেশনে। এখন পর্যন্ত ইউক্রেনের হাজার হাজার মানুষ আশ্রয় নিয়েছে দেশটির পাতাল রেলস্টেশনে। হাজারো মানুষ সেখানে একসাথে গাদাগাদি করে থাকছে।সঙ্গে থাকা খাবারও ফুরিয়ে এসেছে।

খবর নিউইয়র্ক টাইমস ও নিউইয়র্ক পোস্টের।

খবরে বলা হয়, শুধু কিয়েভের পাতাল রেলস্টেশনেই আশ্রয় নিয়েছে ১৫ হাজারের বেশি মানুষ। শিশু থেকে বৃদ্ধ সবাই সেখানে মানবেতর জীবন যাপন করছে।

পাতাল রেলস্টেশনের কর্মকর্তা ভিক্টর ব্রাহিনস্কি ইউক্রেনের এক সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ভূগর্ভস্থ এসব স্টেশনে ১ লাখ মানুষের সংকুলান হতে পারে। তিনি বলেন, সেখানে পানি, বাথরুমের পাশাপাশি খাবার ও ওষুধও রয়েছে।শিশু ও বয়স্ক নারীদের জন্য গরম কাপড় ও খাবার সহায়তা দিতে আমরা আশপাশের লোকদেরকে অনুরোধ করি।

কিয়েভজুড়ে সাবওয়ে স্টেশন রয়েছে মোট ৫২টি। কর্তৃপক্ষ বলছে, এরইমধ্যে এসব স্টেশনে আশ্রয় নিয়েছে ১৫ হাজারের বেশি মানুষ। সবমিলিয়ে ১ লাখ মানুষ আশ্রয় নিতে পারবে রাজধানীর পাতাল রেল স্টেশনগুলোতে।

ইউক্রেনের সাধারণ জনগণ অভিযোগ করে বলেন, সামরিক স্থাপনায় হামলার কথা বললেও রাশিয়া নির্বিচারে বোমা হামলা চালাচ্ছে বাড়িঘর, হাসপাতাল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিনের সামরিক অভিযান ঘোষণার কয়েক মিনিট পরেই ইউক্রেনে বোমা ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা শুরু করে রুশ সেনারা। এরপর থেকে ইউক্রেন ও রাশিয়ার মধ্যে যুদ্ধ চলছে। ইউক্রেন দাবি করেছে, যুদ্ধে এখন পর্যন্ত ইউক্রেনের দুই হাজারের বেশি বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। যদিও নিহতের নির্দিষ্ট সংখ্যা জানায়নি তারা। এ ছাড়া রাশিয়ার ৯ হাজার ১৬৬ সৈন্য নিহত হয়েছেন বলে দাবি ইউক্রেনের।

অন্যদিকে রাশিয়া দাবি করেছে, যুদ্ধে তাদের ৪৯৮ সৈন্য নিহত এবং আরও এক হাজার ৬০০ জন আহত হয়েছে। এ ছাড়া রুশ হামলায় ইউক্রেনের ২ হাজার ৮৭০ জনের বেশি ইউক্রেনীয় সেনা নিহত এবং প্রায় ৩ হাজার ৭০০ জন আহত হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর