বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ০৯:৩০ অপরাহ্ন

অবৈধভাবে পুকুর ভরাট, সিটি কর্পোরেশনের বাঁধা

শোয়েব হোসেন
  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ২৬ জুলাই, ২০২২

বরিশাল সিটি কর্পোরেশন এলাকার ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাশিপুর নেছারীয়া দারুল উলুম এতিমখানা ও কাশিপুর এনএস আলিয়া মাদ্রাসা কমপ্লেক্স এর ভিতরে থাকা এতিম শিশুদের ও সাধারণ মানুষের গোসল করার পুকুরটি ভরাটের কাজ চলছিল রাতের বেলাতে। সম্প্রতি শেষ পর্যায়ে সিটি কর্পোরেশন তাতে বাধা দিলে কাজ স্থগিত রয়েছে বলে জানা যায়।

সূত্রমতে,কাশিপুর নেছারীয়া দারুল উলুম এতিমখানা ও কাশিপুর এনএস আলিয়া মাদ্রাসা কমপ্লেক্সের ভেতরের পুকুরটিতে শিশুরা ও এলাকাবাসী গোসলের জন্য ব্যবহার করতেন। কিন্তু অবৈধভাবে নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করেই মাদ্রাসা কমপ্লেক্সের এই পুকুরটি ভরাট করা হয়েছে রাতের আধারেই বেশীরভাগ। এছাড়াও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের বাঁধায়ও থামেনি মাদ্রাসা কতৃপক্ষ।পরে সিটি কর্পোরেশন এর আরআই সরেজমিনে বাঁধা দিয়ে নোটিশ দিলে কাজ বন্ধ রয়েছে বলে জানা যায়।

অভিযোগ রয়েছে, এতিমখানা ও মাদ্রাসার পুকুরটি ভরাটের বালুর কাজ স্থানীয় বিএনপি নেতাদের নেয়া।তাদের সরাসরি সাহায্যে চলে মাদ্রাসায় এমন বেআইনি কাজ।এছাড়াও অভিযোগ রয়েছে মাদ্রাসা ও এতিমখানার জমি অবৈধভাবে দুর্নীতির আশ্রয় নিয়ে ভাগ বন্টন চলছে নিজেদের নামে। মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা হাফেজ ছালাম ওরফে অন্ধ হুজুরের ছেলেই আবার মাদ্রাসার সুপার মাওলানা অলিউল্লাহ্। তাদের নামেই নাকি মাদ্রাসা কমপ্লেক্সের ভেতরেই জমি, এমনটাই জানা যায় লোকমুখে। স্থানীয়দের অভিযোগ, জমি ভাগ বন্টন করার এক পর্যায়ে এসিল্যান্ড জমির রেকর্ড আটকে দেন। কারন হিসেবে তিনি মাদ্রাসার জমি দুর্নীতি করে ভাগবন্টনের কথা জানান।

এ বিষয়ে মাদ্রাসার সুপার মাওলানা অলিউল্লাহ্ জানান, মাদ্রাসার ভেতরে তার বাবার জমিতেই পুকুর। পুকুর ভরাটে এতিমখানা, মাদ্রাসার কোন অর্থ ব্যয় হচ্ছেনা।এটা ব্যক্তিগত টাকায় হচ্ছে।

এই বিভাগের আরও খবর