বুধবার, ২৪ জুলাই ২০২৪, ১০:২০ অপরাহ্ন

পটুয়াখালীতে একরাতে ৮৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত

  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ৪ অক্টোবর, ২০২২

উত্তর পশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন পশ্চিম মধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় আবারও লঘুচাপের সৃষ্টি হয়েছে। লঘুচাপের প্রভাবে গতরাতে ব্যাপক বৃষ্টি ও দমকা হাওয়া বয়ে গেছে পটুয়াখালী জেলা শহরসহ উপকূলীয় এলাকায়।

মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) সকাল ৬টা পর্যন্ত গত বারো ঘণ্টায় ৮৪ দশমিক এবং ২৪ ঘণ্টায় ৮৬ দশমিক ২ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করেছে স্থানীয় আবহাওয়া অধিদপ্তর।

এদিন সকালে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন পটুয়াখালী আবহাওয়া অধিদপ্তরের ইনচার্জ রাহাত হোসেন।

একরাতে রেকর্ড পরিমাণ বৃষ্টিপাতে পটুয়াখালী পৌর এলাকায় সাময়িক জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। সংকীর্ণ ড্রেনেজ ব্যবস্থার কারণে অধিক পরিমাণে বৃষ্টির পানি নামতে সময় লেগেছে বলে দাবী পৌর কর্তৃপক্ষের।

এছাড়াও শহরের সড়ক ও ড্রেনেজের উন্নয়ন প্রকল্প চলমান থাকায় কিছু কিছু সংযোগ বন্ধ থাকায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে এ সমস্যা নিরসনে কাজ করা হবে বলেও জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

দফায় দফায় নিম্নচাপ ও লঘুচাপের কারণে বঙ্গোপসাগরে ইলিশ আহরণে নিয়োজিত জেলেরা পড়েছেন মারাত্মক বিড়ম্বনা ও লোকসানে। এরমধ্যে ঘনিয়ে আসছে মা ইলিশ রক্ষায় ২২দিনের নিষেধাজ্ঞা।

এদিকে লঘুচাপের প্রভাবে চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে ৩ (তিন) নম্বর (পুন.) তিন নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অফিস।

এছাড়াও লঘুচাপের প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় গভীর সঞ্চারণশীল মেঘমালার সৃষ্টি হচ্ছে। এতে সমুদ্র বন্দরসমূহ, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারসমূহকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি এসে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে। সেইসঙ্গে তাদের গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলেছে আবহাওয়া বিভাগ।

এই বিভাগের আরও খবর